হ্যান্ডওয়াশ সুস্থ রাখার পরিবর্তে আপনার ক্ষতি করছে না তো?

0

লাইফ স্টাইল ডেস্ক:

হাত জীবাণুমুক্ত করার কাজে সাবানের বদলে আমরা প্রতিনিয়ত হ্যান্ডওয়াশ ব্যবহার করছি। যা মানুষের বাড়িতে জায়গা করে নিয়েছে অনেকদিন আগেই। এখন শুধু শহরেই না, গ্রামেও হ্যান্ডওয়াশের ব্যবহার বেড়েছে চোখে পড়ার মতো। খাবার খাওয়ার আগে কিংবা যে কোনো সময় পরিষ্কারের জন্য হ্যান্ডওয়াশের উপরেই নির্ভরশীল আমরা।

কিন্তু সুস্বাস্থ্যের জন্য যার উপরে নির্ভর করছেন সে আসলে শরীরের ক্ষতি করছে না তো! হ্যান্ডওয়াশ যদি সঠিক মানের না হয় তবে তা স্বাস্থ্যের জন্য মারাত্মক ক্ষতিকারক হতে পারে।

হ্যান্ডওয়াশ কিনে সেটি যাচাই না করেই ব্যবহার করেন বেশিরভাগ মানুষ। আর তাতেই হতে পারে বিপদ। এমন বিপদের সম্ভাবনার কথাই জানিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা।

সাধারণত যেসব হ্যান্ডওয়াশ অ্যান্টিব্যাকটেরিয়াল বলে বিক্রি করা হয় তাতে কী কী উপাদান রয়েছে তা দেখে তবেই ব্যবহার করা উচিত। এর মধ্যে দুটি উপাদন প্রায়ই ব্যবহার করা হয় যা শরীরের পক্ষে ক্ষতিকারক।

ট্রাইক্লোসান ও ট্রাইক্লোরোকার্বন নামের দুই উপাদান থাকলে হাত ধুয়ে খেলেও হ্যান্ডওয়াশের কারণে শরীরে মারাত্মক ক্ষতি হয়ে যেতে পারে। এই দু’টি উপাদান ব্যাক্টেরিয়া ধ্বংস করতে পারলেও শরীরের পক্ষে ভালো নয়।

আমেরিকান ফুড অ্যান্ড ড্রাগ অ্যাডমিনিস্ট্রেশন দেখেছে, বহু প্রোডাক্টেই এমন উপাদান থাকে যা শরীরকে ব্যাক্টেরিয়ার হাত থেকে রক্ষা করার বদলে মারাত্মক ক্ষতি করে দেয়। এজন্য বিভিন্ন সময়ে মার্কিন সরকার ২০০০ এরও বেশি সংস্থার পণ্যের উপরে নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে।

বিভিন্ন গবেষণা বলেছে, এই রাসায়নিক শরীরে গেলে মস্তিষ্কের স্বাভাবিক আচরণ ও প্রজনন ক্ষমতায় ব্যাঘাত ঘটাতে পারে।

বিশেষজ্ঞদের দাবি, এই ধরনের হ্যান্ডওয়াশ ব্যবহারে ক্ষতি হওয়ার আরও অনেক ভয় রয়েছে। অতিরিক্ত রাসায়নিক মেশানো হ্যান্ডওয়াশ ব্যবহারের ফলে এমন জীবাণু জন্ম নিতে পারে যারা কোনো ওষুধেই মরে না। ড্রাগ রেজিসটেন্ট জার্ম স্বাস্থ্যের পক্ষে অত্যন্ত খারাপ।

শুধু হ্যান্ডওয়াশ নয়, এই ধরনের ক্ষতিকারক ব্যাক্টেরিয়া নাশক উপাদান সাবান, টুথপেস্ট, মাউথওয়াশ, ডিটারজেন্টেও থাকে। তবে কোনো ক্ষেত্রেই সাধারণভাবে জীবানুনাশকের পরিমাণ ০.৩ শতাশের বেশি হলে তা ব্যবহার করা উচিত নয়।

ওয়ার্ল্ড হেলথ অর্গানাইজেশন (WHO) বিভিন্ন সময়ে এর অপকারিতা নিয়ে সতর্ক করেছে। আপনি যদি ডব্লিউএইচও-এর পরামর্শ মানেন এবং হাত যদি সত্যিই খুব ময়লা থাকে তবে খাবার খাওয়ার আগে সাবান দিতে হাত ধোয়া উচিত। তারপর জীবাণুমুক্ত হতে হলে অ্যালকোহল দিয়ে তৈরি প্রোডাক্ট ব্যবহার করা উচিত। এগুলো জীবাণু মারে কিন্তু অন্য কোনো ক্ষতি করে না।

Spread the love
  • 14
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    14
    Shares

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.com-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.com আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।