পর্ন দেখিয়ে হোস্টেলে প্রতিবন্ধী তরুণী ধর্ষণ

0

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:

ভারতের মধ্যপ্রদেশের ভোপালে একটি বেসরকারি হোস্টেল পরিচালকের বিরুদ্ধে এবার ধর্ষণের অভিযোগ এনেছে ৪ জন নারী। গত সপ্তাহে ২০ বছর বয়সী শ্রবণ ও বাক্‌ প্রতিবন্ধী এক তরুণীকে আটকে রেখে টানা ৬ মাস ধরে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছিল হোস্টেলের ওই পরিচালকের বিরুদ্ধে।

হোস্টেল সুপারের বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ দায়েরের মাত্র ২ দিনের মধ্যে একই অভিযোগ আনেন ওই হোস্টেলের আরও ২ জন নারী। বুধবার রাতে হোস্টেলটির পরিচালক অশ্বিনী শর্মাকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

ইন্দোর পুলিশকে ওই হোস্টেলে বসবাসকারী এই ৩ জন নারীর বাইরে অপর এক নারীও ওই হোস্টেল সুপারের বিরুদ্ধে ধর্ষণের গুরুতর অভিযোগ এনে বলেছেন, ‘আমাকে বন্দি করে রাখা হয়েছিল। জোর করে আমায় পর্ন ফিল্ম দেখানো হত। পর্ন ফিল্ম চালিয়ে দিয়ে উত্তেজনাবশতঃ ওই লম্পট লোকটি শরীরের বস্ত্র খুলে ফেলে সামনে বসে স্বমেহন করতো। এভাবে নিপীড়ন চলতো ঘণ্টাখানেক। তারপর ধর্ষণে প্রবৃত্ত হতো। এভাবে দিনের পর দিন চলেছে। টানা ৬ মাস ধরে ওই লম্পট হোস্টেল সুপার আমাকে ধর্ষণ করে গেছে।’

আরও পড়ুন  বলাৎকারের শিকার হলিউডি অভিনেতারাও মুখ খুলছেন!

ধর্ষক হোস্টেল সুপারের শারীরিক চাহিদা মেটাতে না পারলে বা অনীহা প্রকাশ করলে তার ওপর অকথ্য অত্যাচার চালানো হতো, হাত পা বেঁধে বেল্ট দিয়েও পেটানো হতো বলেও অভিযোগ করেছেন ওই নারী।

আধপুরির ক্রিস্টাল আইডিয়াল সিটিতে অশ্বিনী কুমার যে ৪ জন মেয়ের ওপর যৌন নিপীড়ন চালাতো, তারই একজন ধার জেলার ২৩ বছরের মেয়েটি। তার জবানবন্দি শুনে রীতিমতো হতভম্ব হয়ে গেছেন ইন্দোর পুলিশের এই কর্মকর্তারা।

এদিকে এই বিষয়টি নিয়েও শুরু হয়ে গেছে রাজনীতি। কংগ্রেসের দাবি, ধর্ষণের দায়ে অভিযুক্ত হোস্টেল সুপার বিজেপির সঙ্গে খুবই ঘনিষ্ঠ। শুক্রবার একটি ভিডিও প্রকাশ করে কংগ্রেসের পক্ষ থেকে বলা হয়, ‘অশ্বিনী শর্মা আরএসএস-এর কর্মী। তিনি মুখ্যমন্ত্রী শিবরাজ সিং চৌহানের আশীর্বাদধন্য।’

আরও পড়ুন  প্রথম বিবাহিত মুসলিম সমকামী যুগলের একজন বাংলাদেশি জাহেদ

ভিডিওটিতে শিবরাজ সিং চৌহানকে প্রণাম করতে দেখা গিয়েছে অশ্বিনী কুমারকে। প্রতি মাসে রাজ্যের সমস্ত নারী হোস্টেলে নজরদারির নির্দেশ দিয়েছে সরকার।

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.com-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.com আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।