ধর্ষণের উদ্দেশ্যে শিশু অপহরণ করে খাটের নিচে বেঁধে আসর ও মাগরিবের নামাজ পড়ায় ইমাম!

0

সিলেট সংবাদদাতা:

সিলেট জেলার জকিগঞ্জ উপজেলার মসজিদের ইমাম কর্তৃক মাত্র ৮ বছরের একটি শিশুকে ধর্ষণের উদ্দেশ্যে অপহরণ ও বেঁধে রাখার খবর পাওয়া গেছে। অবস্থাদৃষ্টে জানা গেছে, নিশ্চিতভাবেই ধর্ষণের পর শিশুটিকে হত্যা করে লাশ গুম করে ফেলতো ওই নরপিশাচ ইমাম, যদি তাকে জীবিত উদ্ধার করা না যেত।

ছবিতে যে লোকটিকে হাত বাঁধা অবস্থায় দেখা যাচ্ছে, সেই লোকটি সিলেটের জকিগঞ্জের হাজারীচক গ্রামের পশ্চিম মহল্লা নতুন পাঞ্জেগানা মসজিদের ইমাম হাসান আহমদ (২৫)। জকিগঞ্জ উপজেলার হাজারীচক গ্রামের জুবের আহমদের শিশুকন্যা কলাকুটা সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ৩য় শ্রেণিতে পড়ুয়া নিশাত আক্তার (৮)-কে স্কুল থেকে বাড়ি ফেরার পথে তার হুজরায় (মসজিদের ইমাম বা মুয়াজ্জিনের থাকার ঘর) নিয়ে হাত, পা ও চোখ বেঁধে রাখে। এদিকে শিশুটির খোঁজ শুরু হয় বাড়ি ফিরতে দেরি দেখে। চারদিকে খোঁজাখুঁজি করে না পেয়ে সেই ইমামকে দিয়েই মসজিদের মাইকে নিখোঁজ সংবাদ ঘোষণা দেয়ানো হয়!

আরও পড়ুন  ১১ ঘণ্টা পর অপহৃত কুমিল্লা আওয়ামী লীগ নেতা পারভেজ পূর্বাচলে উদ্ধার

জানা গেছে, দৌলতপুর গ্রামের কুতুব উদ্দিনের পুত্র হাসান আহমদ শিশু নিশাত আক্তারকে তার হুজরায় হাত, পা ও চোখ বেঁধে খাটের নিচে ঢুকিয়ে রেখে মুসল্লিদেরকে আসর ও মাগরিবের নামাজও পড়িয়েছে।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, কোথাও নিশাতকে খুঁজে পাওয়া যাচ্ছিলো না যখন, তখন অপর একটি শিশু নিশাতের জুতার এক পাটি ইমামের হুজরার বাইরে পড়ে থাকতে দেখে অন্যদেরকে জানায়। তারপর সন্দেহবশতঃ ইমামের হুজরা তল্লাশি করে নিশাতকে হাত, পা ও চোখ বাঁধা অবস্থায় খাটের নিচে পাওয়া যায়। পরে মসজিদের ইমাম হাসান আহমদকে গণধোলাই দেয় উত্তেজিত জনতা। পরে জনতার রোষ থেকে স্থানীয় চেয়ারম্যান মাহতাব আহমদ চৌধুরী তাকে উদ্ধার করে ৯নং মানিকপুর ইউনিয়ন কার্যালয়ে রেখে পুলিশে খবর দেন।

আরও পড়ুন  ধর্ষণে ব্যর্থ হয়ে হিন্দু নারীকে নগ্ন করে মারধর ও চুল কেটে সিঁদুর মুছে দেয়া হলো

মাহতাব আহমদ জানান, স্থানীয়দের ধারণা, শিশু নিশাতকে আবারও রাতে কয়েকদফা ধর্ষনের পর রাতেই হত্যা করে লাশ গুম করে ফেলত শিশু ধর্ষক ইমাম হাসান আহমদ। শুধুমাত্র ভাগ্যের জোরেই মেয়েটি বেঁচে গেছে।

এই চাঞ্চল্যকর ঘটনাটির সত্যতা নিশ্চিত করেন জকিগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ হাবিবুর রহমান হাওলাদার বলেন, আজ (সোমবার) তাকে আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে প্রেরণ করা হবে।

Spread the love
  • 4.2K
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    4.2K
    Shares

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.com-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.com আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।