আয়ারল্যান্ডে হিন্দু, বৌদ্ধ ও খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের “অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশ গঠনের ডাক”

0

আয়ারল্যান্ড সংবাদদাতা:

সকলকে অত্যান্ত আনন্দের সাথে জানানো যাচ্ছে যে গত রোজ রোববার ০৮ই জুলাই আয়ারল্যান্ডের রাজধানী ডাবলিনে “IBIS Hotel” এ বেলা ৫ ঘটিকায় “Bangladesh Hindu Buddhist and Christian Unity Council in Ireland” এর অভিষেক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়।

মহা সমারোহে দিনটি উৎযাপিত হয়। বাংলাদেশ ঐক্য পরিষদ এবং ইউরোপীয় ঐক্য পরিষদের যৌথ সম্মতিতেই আয়ারল্যান্ড ঐক্য পরিষদের স্বীকৃতি এবং এর সভাপতি পদে নিবার্চিত হোন “শ্রী সমীর কুমার ধর” এবং সাধারন সম্পাদক পদে নির্বাচিত হোন “শ্রী দীপন পুরকায়স্থ”। উক্ত মহাসভার প্রধান অতিথী থাকেন “Amnesty International in Ireland” এর প্রতিনিধি মিস কীরণ ক্লিফোর্ড। সভার সভাপতিত্ব করেন “শ্রী কুমার বিজয়”।

সভায় প্রথমে বাংলাদশের জাতীয় সঙ্গীত পরিবেশন এবং পবিত্র গীতাপাঠ এবং ত্রিপিটক পাঠ করা হয়, এরপরই মোমবাতি জ্বালিয়ে সভার অনুষ্ঠান সুচনা করেন “Amnesty International in Ireland” এর প্রতিনিধি।

Amnesty এর প্রতিনিধি “মিস কীরণ ক্লিফোর্ড” তার সুদীর্ঘ ৪৫ মিনিটব্যাপী অত্যন্ত তথ্যবহুল মানবাধিকার বিষয় নিয়ে বাস্তব চিত্র তুলে ধরেন। উনি বলেন “Raising Awareness is the Key-Point” এবং সকলের প্রতি মানবতাবোধ উন্নয়নের কথা বলেন, এছাড়া বৈশ্বিকদিকগুলো তুলে ধরার পাশাপাশি “আয়ারল্যান্ড ঐক্য পরিষদ” কে সমর্থকসহ ভবিষ্যতে একসাথে কাজ এবং সাহায্য সহযোগিতা করার দৃঢ় প্রত্যয় জ্ঞাপন করেন।

সভায় বক্তব্য রাখেন আইরিস স্কলার “Mr. Eamonn J. Brennan” উনি পৃথিবীতে বিভিন্ন জাতির ইতিহাস এবং ভৌগলিক অবস্থান সর্ম্পকে বর্ণনা করেন বিস্তারিতভাবে।

আরও পড়ুন  মেহের আফরোজ চুমকি এমপির এপিএস কর্তৃক সংখ্যালঘু উচ্ছেদের প্রাথমিক সাফল্য অর্জিত!

আয়ারল্যান্ড ঐক্য পরিষদের সভাপতি “শ্রী সমীর কুমার ধর” বক্তব্যে তুলে ধরেন যে “রাষ্ট্রের অবস্থান সবার উপরে এবং ধর্ম যথারীতি যার যার ব্যক্তিগত পছন্দের ব্যাপার। ধর্ম নিয়ে যারা রাজনীতি এবং বিদ্বেষ তৈরী করে এদের বিরুদ্ধে আমাদের সকল ধর্ম-মত নির্বিশেষে মৌলবাদের বিরুদ্ধে ঐক্যের মাধ্যমে রুখে দাঁড়াতে হবে সবসময়। কোন একটি বিশেষ ধর্মকে রাষ্ট্র ধর্ম করার লক্ষ্যেই বাংলাদেশে স্বাধীনতা অর্জিত হয় নাই। কেবলমাত্র একটি ধর্মকে প্রাধান্য দিলে এর উগ্রতা তৈরী হয় এবং ভবিষ্যতে বাংলাদেশের অবস্থান তৈরী হব ভয়াবহ যা ক্রমাগত নির্যাতিত বাংলাদেশের সকল সংখ্যালঘুরাই প্রমাণ।”

সভায় প্রথমে দুরলাপণির (WhatsApp) এর মাধ্যমে ইংরেজীতে দীর্ঘ বক্তব্য রাখেন ইউরোপীয় ঐক্য পরিষদের সম্মানিত সভাপতি “শ্রী অমরেন্দ্র রয়”, উনি প্রথমেই আয়ারল্যান্ড ঐক্য পরিষদকে শুভেচ্ছা জানান, এরপর সংখ্যালঘুদের বর্তমান অবস্থান পরিপ্রেক্ষিতে বাংলাদেশের সংখ্যালঘুদের করণীয় বিষয় নিয়ে কথা বলেন। উনি সবার মনোযোগ আকর্ষণ করে বলেন যে “বাংলাদশের বর্তমান এবং ভুতপুর্ব কোন সরকারই সংখ্যালঘুদের নিয়ে স্বার্থ রক্ষাসহ নিরাপত্তার ব্যাপারে কাজ করে নাই, তাই সংখ্যালঘুদের ঐক্যবদ্ধ হয়েই সকল দাবি দাওয়া আদায় করার কথা বলেন।” সর্বোপরি বিভিন্ন সাংগঠনিক দিকনির্দশনাসহ সকলের মঙ্গল কামনা করেন।

সভায় অন্যতম মুল আকর্ষণ ছিলো টেলিযোগে বাংলাদেশের কেন্দ্রীয় ঐক্য পরিষদের অত্যান্ত সম্মানিত সাধারন সম্পাদক “শ্রী রানাদাশ গুপ্ত” ভাষণ। উনি ইংরেজীতে তার দীর্ঘ ১৫ মিনিটের বক্তব্য পেশ করেন। উনি উনার বক্তব্যে বলেন যে “Upcoming Election will be the terrifying situation for Bangladeshi Minorities like previous time every election”. উনি আরোও বলেন যে বর্তমান সরকার যথাযথ ভুমিকা নিচ্ছে না বাংলাদেশের আদিবাসীসহ সকল সংখ্যালঘুদের ব্যাপারে। সংখ্যালঘুদের সজাগ থাকার পাশাপাশি আয়ারল্যান্ড ঐক্য পরিষদকে শুভেচ্ছা এবং আর্শিবাদ প্রদান করে বক্তব্য শেষ করেন।

আরও পড়ুন  হিন্দু প্রতিবেশীদের জবাই করেছে মুসলিম সংগঠন আরসার রোহিঙ্গারাই: অ্যামনেস্টি

এরপর বক্তব্য রাখেন আয়ারল্যান্ড ঐক্য পরিষদের মহিলা বিষয়ক সম্পাদিকা “শ্রীমতি শর্মিষ্ঠা সেনগুপ্তা” উনি সম্মানিত রানা দাশগুপ্তের বক্তব্যকে পূর্ণ সমর্থন করেন এবং জোরালোভাবে বলেন যে স্থানীয় প্রশাসন এবং সরকারসহ রাজনৈতিক দলের নেতারাই সকল সংখ্যালঘুদের নিয়ে সমস্যার জন্যে মূলত দায়ী, কেননা এদের যথাযথ ভুমিকা না থাকার কারনেই ইসলামিক মৌলবাদের অপকর্ম দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে।

এরপরে আয়ারল্যান্ড ঐক্যপরিষদের সাধারন সম্পাদক “শ্রী দীপন পুরকায়স্থ” উনার সংক্ষিপ্ত বক্তব্যে সকলকে ঐক্যবদ্ধ হতে বলেন এবং সংখ্যালঘুদের সম অধিকারের ব্যাপারে কথা বলেন।

আয়ারল্যান্ড ঐক্য পরিষদের পক্ষে আরোও বক্তব্য রাখেন “শ্রী শুভংকর দেওয়ান”, “শ্রী বাপ্পি সাহা”, “শ্রী সুমন সাহা”, “শ্রী মৃদুল কান্তি পাল”, “শ্রীমতি কাকলি বশাক”, “শ্রী অলক সরকার”, “শ্রী বরুণ কর্মকার” “শ্রী গিরিশ বড়ুয়া” এবং সর্বশেষে বক্তব্য প্রধান করেন ঐক্য পরিষদের “শ্রী সন্জয় মজুমদার”। অতিথিদের পক্ষে থেকে বক্তব্য রাখেন “শ্রী মাহেশ বাবু”, “শ্রী এডউইন সানি”।

আয়ারল্যান্ড শাখার বাংলাদেশী রাজনৈতিক দল বিএনপি এর সভাপতি উক্ত অনুষ্ঠান উপস্থিত না হতে পারার জন্যে দুঃখ প্রকাশ করেন কিন্তু ভবিষ্যতে আয়ারল্যান্ড ঐক্য পরিষদের সভায় থাকবেন বলে প্রতিশ্রুতি জ্ঞাপনসহ “আয়ারল্যান্ড ঐক্যপরিষদকে শুভেচ্ছা জানান”।

আরও পড়ুন  অবশেষে সিস্টার লুসিকে নাগরিকত্ব দিয়ে আপন করে নিলো বাংলাদেশ

আয়ারল্যান্ড আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে প্রথমে বক্তব্য রাখেন সম্মানিত নেতা “জনাব ইকবাল আহমেদ লিটন” এবং এরপর সর্বশেষে বক্তব্য রাখেন ডাবলিন আওয়ামী লীগের সম্মানিত সভাপতি “জনাব ফিরোজ হোসেন”।

আওয়ামী লীগ নেতা জনাব ইকবাল আহমেদ লিটন বলেন “মানবতাবোধ আমাদের সকলের মাঝে দরকার”, উনি আয়ারল্যান্ড ঐক্য পরিষদের কর্মকান্ডকে সমর্থন প্রদানসহ ভবিষ্যতে পাশে থাকার কথা বলেন।

সভার সর্বশেষে বক্তব্য প্রদান করেন ডাবলিন আওয়ামী লীগের সভাপতি জনাব ফিরোজ হোসেন, উনি বলেন যে “আমি আয়ারল্যান্ডে একজন সংখ্যালঘু, আমি যদি আয়ারল্যান্ডে সমঅধিকার পাই তাহলে বাংলাদেশের সংখ্যালঘুরা কেন বাংলাদেশে পাবে না..” উনি চমৎকার বক্তব্যে অনেক বিষয় তুলে ধরার পাশাপাশি “আয়ারল্যান্ড ঐক্য পরিষদ” কে পুর্ন সমর্থনসহ পাশে থাকার দৃঢ় প্রত্যয় জ্ঞাপন করেন।

সভার শেষ পর্যায়ে “প্রশ্ন এবং উত্তর পর্ব” থাকে এতে বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর প্রদান করেন Amnesty International Ireland এর প্রতিনিধী এবং আয়ারল্যান্ড ঐক্য পরিষদের সভাপতি।

সভার শেষে, প্রীতিভোজে স্বাত্তিক খাবার পরিবেশনা করা হয় এবং সকলকে ধন্যবাদজ্ঞাপনসহ সকলের প্রতি মঙ্গল কামনা করে সভার সমাপ্তি ঘোষণা করেন আয়ারল্যান্ড ঐক্য পরিষদের সভাপতি।

সমীর কুমার ধর
ই-মেইল: mikesam58@gmail.com

Spread the love
  • 398
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    398
    Shares

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.com-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.com আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।