হিন্দুদের সাথে ততটাই সম্পর্ক রাখুন যতটা পায়খানার সঙ্গে রাখেন: পাকিস্থানি ধর্মগুরু (ভিডিও)

0

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:

কট্টর ইসলামপন্থী দেশ তথা জঙ্গীদের আঁতুড়ঘর হিসাবে পরিচির পাকিস্থানে প্রতিদিনই হিন্দু তথা অন্যান্য সংখ্যালঘুদের ওপর অত্যাচারের খবর আসতেই থাকে। কখনো হিন্দু কিশোরীকে তুলে নিয়ে গিয়ে ধর্ষণ করা হয় আবার কখনো জোর করে ইসলাম গ্রহণ করানো হয়। আর এই সব ঘটনার পেছনেই হাত থাকে কট্টর মুসলিম ধর্মগুরুদের যারা নিজেদের বক্তৃতার মাধ্যমে জনগণকে অন্য ধর্মাবলম্বীদের বিরুদ্ধে ক্ষেপিয়ে তোলে যার পরিণামে হিন্দুদের নানাভাবে অত্যাচারিত হতে হয়। এমনই এক কট্টর মুসলিম ধর্মগুরু হলেন খাদিম হুসেন রিজভি।

নানা সময় অমুসলিমদের বিরুদ্ধে অপমানজনক বক্তৃতা দিয়ে থাকেন এই ধর্মগুরু। দুদিন আগে এমনই এক ধর্মীয় মাহফিলে হিন্দুদের বিরুদ্ধে চরম অপমানসূচক মন্ত্যব্য করেন তিনি। আসলে পাকিস্থানে সাধারণ নির্বাচনের আগে যেভাবে সমস্ত দল হিন্দুদের কাছে টানতে তৎপর হয়েছে তাতে সিঁদুরে মেঘ দেখছেন এই ধর্মগুরুরা। ইনি বলেন যে হিন্দুরা সবাই জাহান্নমে যাবে। একমাত্র মুসলিমরাই জান্নাত পাবে, কারণ কে জান্নাত যাবে সেটা মানুষ না ঠিক করে দিয়েছেন আল্লাহ।

হিন্দুদের সাথে সম্পর্ক রাখার ব্যাপারেও তিনি জানান যে, হিন্দুদের সাথে ততটাই সম্পর্ক রাখা উচিত যতটা আমরা পায়খানার সাথে রাখি। আমরা প্রয়োজনে সেখানে যাই, প্রয়োজন মিটে গেলে চলে আসি কিন্তু সেখানকার দুর্গন্ধ গ্রহণ করিনা।

কে এই খাদিম হুসেন রিজভি:

খাদিম হুসেন রিজভি পাকিস্থানের ধর্ম ভিত্তিক সংগঠন তেহরিক-ই-লাব্বাইকের সভাপতি। এই সংগঠনটি ‘নবীর ধর্মকে’ (ইসলাম) রাষ্ট্রক্ষমতায় প্রতিষ্ঠিত করার দাবির পাশাপাশি ধর্ম অবমাননা আইনের (ব্লাসফেমি) বাস্তবায়নে কঠোর হওয়ার দাবি জানিয়ে আসছে। পাকিস্থানে ধর্ম অবমাননার শাস্তি মৃত্যুদণ্ড। ধর্ম অবমাননার দায়ে অনেকের মৃত্যুদণ্ডের রায় হলেও কাছাকাছি সময়ে কারও মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করা হয়নি।

গত মে মাসে পাকিস্থানের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আহসান ইকবালকে হত্যাচেষ্টার ঘটনায় ধর্মভিত্তিক এই দলটির সম্পৃক্ততার প্রমাণ পাওয়া গেছে। আসিফ পাকিস্থান মুসলিম লিগ- নওয়াজ (পিএমএল-এন) এর সদস্য এবং নওয়াজ শরিফের ঘনিষ্ঠ সহযোগী। ঘটনার দিন আসিফ পাঞ্জাব প্রদেশে একটি জনসভা শেষ করে বের হচ্ছিলেন। নেতাকর্মী পরিবেষ্টিত অবস্থায় ভিড়ের মধ্যে আবিদ হাসান (২১) নামে তেহরিক-ই-লাব্বাইকের এক সদস্য তাকে গুলি করে। পুলিশ তার কাছ থেকে পিস্তল উদ্ধার করেছে।

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.com-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.com আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।