মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে ধর্মে বিশ্বাসী মানুষের সংখ্যা ক্রমশঃ কমছে

0

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:

একটি মার্কিন বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের সাম্প্রতিক গবেষণায় দেখা গেছে যুক্তরাষ্ট্রে প্রতি ৩ জনের ১ জন ধর্মের ব্যাপারে আগ্রহী নয়। আর প্রতিবছর আমেরিকায় প্রায় সাড়ে ৩ হাজার চার্চ বন্ধ হয়ে যাচ্ছে। কোন নির্দিষ্ট ধর্মের ওপর এই জরিপ চালানো হয়নি। প্রচলিত প্রত্যেক ধর্মের অনুসারীরা জরিপে অংশগ্রহণ করেন। জরিপের ফলাফল দেখে, দিনের পর দিন যুক্তরাষ্ট্রের নাগররিকদের ধর্মের প্রতি বিশ্বাস কমছে বলে মনে করেন মার্কিন ধর্ম বিশেষজ্ঞ গ্রেগ স্মিথ। গ্রেগ স্মিথ ওয়াশিংটন ডিসি-তে পিউ রিসার্স সেন্টারের ধর্ম গবেষণা বিভাগের সহকারী পরিচালক।

মূলত মার্কিন সিনেটের ভাইস প্রেসিডেন্ট মাইক পেন্স-এর ধর্ম বিষয়ক একটি বক্তব্যের জের ধরে এই পরিসংখ্যান প্রকাশ্যে এনেছেন ধর্ম বিশেষজ্ঞ গ্রেগ স্মিথ। ডোনাল্ড ট্রাম্পের কারণে আমেরিকায় ধর্ম বিশ্বাসীদের সংখ্যা আবারো বাড়তে শুরু করেছে বলে মন্তব্য করেছিলেন ভাইস প্রেসিডেন্ট মাইক পেন্স।

আরও পড়ুন  জেরুজালেমেও আজান নিষিদ্ধ করেছে ইসরায়েল!

সম্প্রতি মিশিগানের ক্রিশ্চিয়ান কনজারভেটিভ ক্যাম্পাসে একটি অনুষ্ঠানে দেয়া বক্তৃতায় মাইক পেন্স বলেছেন, ‘ডোনাল্ড ট্রাম্পের কারণে আমেরিকায় ধর্ম বিশ্বাসীদের সংখ্যা আবারো বাড়তে শুরু করেছে। আগের তুলনায় চারগুন বেশি মানুষ ধর্মকর্ম করছে, প্রতি সপ্তাহে চার্চে ভিড় করছে, বাইবেলে বিশ্বাস রাখছে।’

ধর্ম বিশেষজ্ঞ গ্রেগ স্মিথ মাইক পেন্সের এই বক্তব্যকে ভিত্তিহীন ও কল্পনপ্রসূত বলে মনে করছেন। কারণ মাইক পেন্স কোনো নির্দিষ্ট তথ্য উপাত্তের উপর ভিত্তি করে এমন মন্তব্য করেন নি। গ্রেগ স্মিথ বলেছেন, ‘সাম্প্রতিক পরিসংখ্যানে আমরা দেখেছি যে, আমেরিকায় ধর্ম বিশ্বাসীদের সংখ্যা চোখে পড়ার মতো কমছে। ধর্মের চেয়ে মানুষ দৃশ্যমান বিষয়ের উপর ঝুঁকে পড়ছে। আগের চেয়ে মানুষ নিজেকে নাস্তিক হিসেবে প্রকাশ করতে স্বাচ্ছন্দ্য বোধ করছে। এমনকি আগে মানুষ যতটা ধর্ম বিষয়ক সেমিনারগুলোতে অংশগ্রহণ করতো, এখন তা উল্লেখযোগ্য হারে কমছে।’

আরও পড়ুন  স্বামীর লিঙ্গ কেটে নিয়ে বাপের বাড়ি চলে গেলেন স্ত্রী!

তিনি আরও বলেন, ১৯৯৬ সালে ৬৫ শতাংশ আমেরিকান নিজেকে শ্বেতাঙ্গ খৃষ্টান বলে পরিচয় দিতেন। এক দশক পরে সেই হার কমে এসে দাঁড়িয়েছে ৪৩ শতাংশে।

মাইক পেন্স কেন এই কথা বলেছেন?

ভাইস প্রেসিডেন্ট মাইক পেন্স ব্যক্তিগতভাবে একজন ধর্ম বিশ্বাসী। একজন রক্ষণশীল খ্রিস্টান। আর ট্রাম্প প্রশাসন পেন্সকে ভাইস প্রেসিডেন্ট হিসেবে নির্বাচিত করার পর থেকে রক্ষণশীল খ্রিস্টানদের মধ্যে ট্রাম্পের জনপ্রিয়তা হুড়হুড় করে বাড়তে থাকে।

ডোনাল্ড ট্রাম্পের নির্বাচনী প্রতিশ্রুতির মধ্যে অন্যতম ছিল জেরুজালেমকে ইসরায়েলের রাজধানী হিসেবে স্বীকৃতি দেয়া। আর এটাও ছিল ট্রাম্পের রক্ষণশীল খ্রিস্টানদের মন জয় করার একটা কৌশল। কারণ অনেক খ্রিস্টান ধর্মাবলম্বী মনে করেন, ইসরায়েলের জন্য সমর্থনের বিষয়টি বাইবেলে লেখা রয়েছে। তারা বিশ্বাস করে, ইহুদিদের জন্য ঈশ্বরই ইসরায়েল বরাদ্দ করেছেন।

আরও পড়ুন  সৌদি নারীর ড্রাইভিং অধিকার
Spread the love
  • 44
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    44
    Shares

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.com-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.com আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।