দুর্নীতি ও মাদক ব্যবসার অভিযোগে আ.লীগ সংসদ সদস্যকে দুদকের জিজ্ঞাসাবাদ

0

সময় এখন ডেস্ক:

অবৈধ সম্পদ অর্জন ও মাদক ব্যবসার সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগ অনুসন্ধানে আওয়ামী লীগ এর নির্বাচিত খুলনা-২ আসনের সংসদ সদস্য মিজানুর রহমান মিজানকে জিজ্ঞাসাবাদ করছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)।

সোমবার সেগুনবাগিচায় অবস্থিত দুদকের প্রধান কার্যালয়ে সকাল সাড়ে ১০টা থেকে দুদক উপ পরিচালক ও অনুসন্ধান কর্মকর্তা মো. মঞ্জুর মোর্শেদ মিজানুর রহমানকে জিজ্ঞাসাবাদ শুরু করেছেন বলে দুদক সূত্রে জানা গেছে।

দুদকের জনসংযোগ কর্মকর্তা প্রণব কুমার ভট্টাচার্য্য সময় এখন ডটকমকে জানিয়েছেন, এর আগে গত ৪ এপ্রিল মো. মঞ্জুর মোর্শেদ স্বাক্ষরিত এক চিঠিতে সংসদ সদস্য মিজানুর রহমানকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য তলব করা হয়। সেই তলবে সাড়া দিয়ে আজ সকাল ১০টার দিকে তিনি দুদকের প্রধান কার্যালয়ে হাজির হন।

আরও পড়ুন  'খালেদার শাস্তি দেখে কান্না আসে, জনগণের জন্য আসে না?'

খুলনা-২ আসনের নির্বাচিত সংসদ সদস্য মিজানুর রহমানের বিরুদ্ধে ক্ষমতার অপব্যবহার করে খুলনা সিটি কর্পোরেশন ও অন্যান্য সরকারি অফিসের ঠিকাদারী নিজ পরিবারের সদস্যদের নামে মঞ্জুর করে। নামমাত্র কাজ করে বাকি টাকা আত্মসাৎ ও মাদকের ব্যবসা করে শত কোটি টাকা মূল্যের অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগ রয়েছে।

এর আগে গত ৪ মার্চ অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগে খুলনা-২ আসনের সংসদ সদস্য ও আওয়ামী লীগ নেতা মিজানুর রহমান, লালমনিরহাটের প্রাক্তন সাংসদ ও বিএনপি নেতা আসাদুল হাবিব দুলু এবং নাটোরের প্রাক্তন সাংসদ রুহুল কুদ্দুস দুলুর বিরুদ্ধে পৃথক অনুসন্ধানের সিদ্ধান্ত নেয় দুদক।

যেখানে মিজান ছাড়া লালমনিরহাটের প্রাক্তন সাংসদ ও বিএনপি নেতা আসাদুল হাবিব দুলুর বিরুদ্ধে বিএনপি আমলে লালমনিরহাট ও রংপুর অঞ্চলের টেন্ডারবাজি এবং ব্যবসায়ীদের কাছ থেকে চাঁদা আদায়পূর্বক কোটি কোটি টাকার অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগ এবং নাটোরের প্রাক্তন সাংসদ রুহুল কুদ্দুস দুলুর বিরুদ্ধে বিএনপি সরকারের আমলে নাটোরের বিভিন্ন সরকারি প্রকল্পে টেন্ডারবাজি, মাদক ব্যবসা ও ব্যবসায়ীদের কাছ থেকে চাঁদা আদায়পূর্বক ৫০০ কোটি টাকার অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগে অনুসন্ধান শুরু করে দুদক।

আরও পড়ুন  পরীক্ষার কথা বলে ছাত্রলীগ নেতার সাথে পালাল প্রবাসীর স্ত্রী!
Spread the love
  • 63
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    63
    Shares

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.com-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.com আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।