বাবলু কোম্পানির বেগুন গাছে ধরছে টমেটো!

0

কুষ্টিয়া সংবাদদাতা:

লোকে লোকারণ্য হয়ে গেছে খবরটা ছড়িয়ে পড়তেই। বেগুন গাছে টমেটো— শুনে অবাক হয়েছেন অনেকেই। আসলে অবাক হওয়ার কিছু নেই। বেগুন গাছে টমেটো চাষ করে সাফল্য দেখিয়েছেন কুষ্টিয়ার মিরপুরের সবজি চাষি বাবলু কোম্পানি। এ নিয়ে টানা ৩য় বারের মতো বেগুন গাছে টমেটোর চাষ করলেন তিনি। এর আগে তিনি কলাগাছ থেকে রাসায়নিক সার, আতা ও নিমপাতা থেকে কীটনাশক তৈরি, ঢ্যাঁড়শ গাছ থেকে পাটের বিকল্প আঁশ উদ্ভাবন করে কৃতিত্ব দেখিয়েছেন।

মিরপুর উপজেলার ছাতিয়ান ইউনিয়নের ছাতিয়ান মালিথাপাড়া গ্রামে বাড়ি বাবলু সর্দার ওরফে বাবলু কোম্পানি (৪২)। প্রাতিষ্ঠানিক কোনও শিক্ষা নেই তার। মেধার গুণে তিনি আজ উদ্ভাবক হিসেবে স্বীকৃতি পেয়েছেন। প্রতিবেদককে তিনি বলেন, ‘প্রায় তিন বছর আগে পরীক্ষামূলকভাবে বেগুন গাছে কলম করে টমেটোর চাষ শুরু করি। একই গাছে বেগুন এবং টমেটোর চাষ করে বেশ সফলতাও আসে। এরপর থেকে প্রায় প্রতি বছর এই পদ্ধতিতে বেগুন এবং টমেটোর চাষ করছি।’

বাবলু বলেন, ‘প্রথমে আমি ৪ বিঘা জমিতে বেগুন চাষ করি। আর ১০ কাঠা জমিতে টমেটো। বেগুন গাছে টমেটো ধরানোর জন্য আমি ১০টি বেগুন গাছে টমেটোর ডোগা কেটে কলম করার মতো করি। সেখানে কিছু দিন পর দেখা যায় টমেটোর ডগাগুলো মারা যায়নি। সেগুলোও বেগুনের ডগার মতো বড় হচ্ছে। এরপর কলম করার মাসখানেক পরে দেখা যায় বেগুন গাছে টমেটোর ডগায় টমেটো ধরেছে। এতে বেগুন গাছ থেকে একইসঙ্গে টমেটো এবং বেগুন পাওয়া যায়। একেকটি গাছ থেকে প্রায় ২ কেজি পর্যন্ত টমেটো পাওয়া সম্ভব।’

এ বছর অল্পকিছু জমিতে বেগুন এবং টমেটোর চাষ করলেও আগামীতে তিনি আরও বেশি জমিতে চাষ করবেন বলে জানান।

২০০০ সালে নিজ গ্রামের তাজ আলী মালিথার ১ বিঘা জমি ৪ হাজার টাকা লিজ নিয়ে ফুলকপি চাষ শুরু করেন বাবলু। পরের বছর একই গ্রামের বগা বিশ্বাসের কাছ থেকে ৮ হাজার টাকায় ২ বিঘা জমি লিজ নিয়ে বেগুন, লাউ ও বাঁধাকপি চাষ করেন। এরপর বাড়তে থাকে বর্গাচাষি বাবলুর সবজি চাষের প্রসার। একসঙ্গে অনেক জমি লিজ নিয়ে সবজি চাষে রীতিমতো বিপ্লব ঘটিয়েছেন বাবলু।

বাবলু শুধু সফল সবজি চাষিই নন, নতুন নতুন উদ্ভাবনেও তার জুড়ি নেই। ২০১১ সালের শেষের দিকে তিনি ঢ্যাঁড়শ গাছ থেকে পাটের মতো আঁশ উদ্ভাবন করে ব্যাপক সাড়া ফেলেন। ২০১২ সালে রাজধানীতে জনবিজ্ঞান ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে আয়োজিত উদ্ভাবনী মেলায় ২৫ স্বশিক্ষিত উদ্ভাবকের একজন বাবলু।

মিরপুর উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ কর্মকর্তা রমেশ চন্দ্র ঘোষ জানান, বাবলু কোম্পানি সফল সবজি চাষি। তিনি এ উপজেলার একজন মডেল চাষি। তিনি এবার তার বেগুনের জমিতে বেগুন গাছে টমেটোর কলম করে চাষ করেছেন। এটা একটি ভালো পদ্ধতি। এর মাধ্যমে অল্প জমিতে অল্প সময়ে অধিক সবজি উৎপাদন করা সম্ভব। বাড়ির ছাদে টবে এগুলো চাষ করা যাবে।

Spread the love
  • 50
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    50
    Shares

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.com-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.com আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।