টিভি সাংবাদিকের অণ্ডকোষ চেপে পুলিশের নির্যাতন!

0

বরিশাল সংবাদদাতা:

সংবাদ মাধ্যমকে বলা হয় জাতির দর্পণ বিশেষ। আর সত্যকে সেই দর্পণে তুলে ধরতে গিয়ে যুগে যুগে নির্যাতিত হয়েছেন বহু সাংবাদিক। সাংবাদিক নির্যাতন এ দেশে তাই নতুন কিছু নয়। বিভিন্ন সময় রাজনৈতিক নেতাদের বিরুদ্ধে ক্ষুরধার লেখনীর কারনে হত্যা এবং নির্যাতনের শিকার সাংবাদিকের সংখ্যা প্রচুর। শুধু নেতা নন, সাধারণ অপরাধীদের বিরুদ্ধে লিখে বা প্রতিবেদন করেও নির্যাতন সইতে হয়েছে অনেককে। সাংবাদিকতার মতো ঝুঁকিপূর্ণ পেশা খুব কমই আছে।

বরিশালে ডিবিসি নিউজের ক্যামেরাপারসন সুমন হাসানকে ডিবি পুলিশের কার্যালয়ের নিয়ে তার অণ্ডকোষ চেপে ধরে নির্যাতনের অভিযোগ উঠেছে পুলিশের বিরুদ্ধে। এ ঘটনায় স্থানীয় পুলিশ প্রশাসন দুঃখ প্রকাশ এবং সংশ্লিষ্ট টিমের আট পুলিশ সদস্যকে প্রত্যাহার করেছে।

আজ মঙ্গলবার বরিশাল মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের কার্যালয়ে ওই নির্যাতনের ঘটনা ঘটে। গুরুতর আহত সুমন হাসান বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।

অভিযোগে জানা যায়, সুমনের এইচএসসি পড়ুয়া ভাগ্নেকে ডিবি পুলিশ আটক করেছে। কিন্তু কেন করেছে, সেটা সুমন জানতে চায়। তখন তার পরিচয় জানতে চায় পুলিশ। সাংবাদিক পরিচয় পেয়েই সুমনকে প্রথম নির্যাতন শুরু করেন উপ-পপরিদর্শক (এসআই) আবুল বাশারের টিমের সদস্য কনস্টেবল মাসুদ। এ সময় সুমনকে হাতকড়া পরিয়ে অমানবিক নির্যাতন করা হয়। সুমনের সহকর্মীরা তাকে বাঁচাতে গিয়ে পুলিশের অশ্লীল আচরণের শিকার হন। এ ঘটনায় মহানগর ডিবি পুলিশ ও স্থানীয় পুলিশের উর্দ্ধতন কর্মকর্তারা বিব্রতকর অবস্থায় পড়েছেন বলে জানায় পুলিশ সূত্র।

নির্যাতনের শিকার সুমন হাসান বলেন, ‘ঘটনাস্থলে বসে আমাকে যা করার তো করেছে। পরে ডিবি অফিসে নিয়ে গিয়ে কনস্টেবল মাসুদ আমাকে হাতকড়া পরা অবস্থায় অণ্ডকোষ চেপে ধরে বেধড়ক মারধর করে।’

আজকের নির্যাতনের ঘটনার পর বিস্তর অভিযোগ উঠছে পুরো মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের টিমের বিরুদ্ধে। তারা বিনা কারণে সাধারণ মানুষকে হয়রানি করছে। কাউকে ফেনসিডিল, গাঁজা অথবা ইয়াবা দিয়ে আটকের পর জিম্মি করে অর্থ নেয়ার ঘটনার অভিযোগও কম নয়। সাংবাদিক সুমন হাসানকে নির্যাতনের ঘটনায় বরিশাল মহানগর পুলিশ দুঃখ প্রকাশ করেছে সাংবাদিকদের কাছে। ওই টিমের আট সদস্যকে ক্লোজড করা হয়েছে।

Spread the love
  • 99
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    99
    Shares

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.com-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.com আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।