ছাত্রীদের বোরকা পরা নিষিদ্ধ করল ইসলামিক বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ!

0

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:

কোরানে সকল মুসলিম নারীকে পর্দা করা বাধ্যতামূলক বলা হয়েছে। এ আদেশের অর্থ হলো দেহের আর্কষণীয় অংশ যেমন বুক, চুল, হাত এবং পা পরপুরুষের সম্মুখে আবৃত রাখা। ইসলামী শরীয়া মোতাবেক এসব শর্ত পূরণের অংশ হিসেবে হিজাব অথবা বোরকা ব্যবহারের নির্দেশ প্রদান করা হয়েছে।

বর্তমানে বেশ কিছু আধুনিক দেশে যেখানে মুসলমান অভিবাসীর সংখ্যা ক্রমে বেড়ে চলেছে সেখানে নিরাপত্তাজনিত কারনে বোরকা এবং সেই সাথে বিভিন্ন প্রাতিষ্ঠানিক ইউনিফর্মের বাধ্যবাধকতার কারনে হিজাব পরিধানও নিষিদ্ধ করা হয়েছে। যদিও এসব নিষেধাজ্ঞা বিতর্কের সৃষ্টি করেছে।

এরই ধারাবাহিকতায় ইন্দোনেশিয়ার ইসলামিক বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে ছাত্রীদের বোরকা পরা নিষিদ্ধ করেছে। এতে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে বিক্ষুব্ধ উঠেছেন শিক্ষার্থীসহ অভিভাবকরা।


ছবি: গত বছর রাক্কাতে বোরকা পুড়িয়ে নারীরা নিজেদেরকে মুক্ত ঘোষণা দিয়েছিলেন

আরও পড়ুন  কাতার-সৌদি দ্বন্দ্বের নেপথ্যে এক রহস্যময়ী নারী! কে সে? (ভিডিও)

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, জাভার ইয়োগাকার্তা শহরে অবস্থিত ‘দ্য স্টেট ইসলামিক ইউনিভার্সিটি’ কর্তৃপক্ষ শিক্ষার্থীদের মাঝে মৌলবাদী চিন্তা চেতনাকে রুখতেই এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ এক প্রজ্ঞাপণে জানায়, বোরকা পরা ছাত্রী এবং মৌলবাদী দলগুলো সুস্থ শিক্ষাদানে বাধা সৃষ্টি করছে। এ কারণেই নিয়মিত বোরকা বা নেকাব পরে এমন ৪১ জন স্নাতক ছাত্রীকে নিয়ে আলোচনাসভার আয়োজন করা হয়েছিল। সেখানে সকলের সম্মতিতেই এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। তবে, তারা সবাই ইচ্ছে করলে হিজাব পরতে পারবে কিন্তু নিজেদের মুখ পুরোপুরি ঢেকে রাখতে পারবে না।

বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, এই সিদ্ধান্ত চূড়ান্ত করার আগে সকলের সঙ্গে আলাদাভাবে পরামর্শ করা হবে। দ্য স্টেট ইসলামিক ইউনিভার্সিটির মতে, বিশ্ববিদ্যালয়ের মতো শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে বোরকা বা নেকাব না পরলে তেমন কোনো ক্ষতি হবে না।

আরও পড়ুন  রোজার দিনে নাইটকোচে যৌনাচারে লিপ্ত ১ যুবতী ও ৫ যুবককে গণধোলাই না দিয়ে পুলিশে সোপর্দ


ছবি: ইরানি নারীরা হিজাব ছুঁড়ে ফেলে রাষ্ট্রীয় বিধি নিষেধের শৃঙ্খল থেকে মুক্তির আন্দোলন করছেন

বোরকা প্রসঙ্গে উইকিপিডিয়ার তথ্য:

বোরকা নারীদের এক ধরনের বহিরাঙ্গিক পোশাক যা সারা শরীর ঢেকে রাখে। ইসলামী শরীয়া অনুযায়ী পর্দা বজায় রাখার স্বার্থে প্রাপ্তবয়স্ক সকল মুসলিম নারীকে ঘরের বাইরে, বিশেষ করে পুরুষমহলে যেতে হলে এটি পরিধান করা বাধ্যতামূলক। এটি একটি ঢিলেঢালা পোশাক যা প্রাপ্তবয়স্ক মুসলিম মহিলাদের পুরো শরীরকে আপাদমস্তক ঢেকে রাখে; কেবল দেখার জন্য মুখমণ্ডলের সামনের বা চোখের অংশটি খোলা থাকে। সাধারণত পাতলা কাপড় দিয়ে এটি তৈরি করা হয়।

Spread the love
  • 12
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    12
    Shares

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.com-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.com আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।