বউ পেটানোর অভিযোগ তাসকিনের বিরুদ্ধে!

0

স্পোর্টস ডেস্ক:

গত বছর দক্ষিণ আফ্রিকা সিরিজের পর দেশে ফিরে তড়িঘড়ি করে বিয়ের পিঁড়িতে বসেন স্পিডস্টার তাসকিন আহমেদ। তখন এই বিয়ে নিয়ে হয়েছে অনেক আলোচনা সমালোচনা। সে সময় ইবিজ সিটিজি ডটকমে নাইটক্লাব কেলেঙ্কারির পর দেশে ফিরে ১২ ঘণ্টার মধ্যেই তাসকিনের বিয়ে! শিরোনামে একটি খবরও প্রকাশিত হয়েছিল। এবার তাসকিনের বিরুদ্ধে উঠেছে তার স্ত্রী দীর্ঘদিনের বান্ধবী সৈয়দা রাবেয়া নাঈমাকে মারধোরের অভিযোগ।

ঘনিষ্ঠ সূত্র থেকে জানা গেছে মারধোরের বিষয়টি আগে ততোটা প্রবল না হলেও ইদানীং মাঝে মাঝেই ঘটছে এমন ঘটনা। চাপের বিয়ের যে গুঞ্জন রয়েছে তারই প্রতিফলন কি এখন দেখা যাচ্ছে? অপ্রত্যাশিতভাবে হওয়া সেই বিয়েই কি বর্তমান সম্পর্কের দেয়ালে চিড় ধরাচ্ছে?

এর আগেও ক্রিকেটারদের বিরুদ্ধে এরকম অভিযোগ উঠেছে অনেক। আরাফাত সানিকে তো আদালত পর্যন্ত যেতে হয়েছে। শাহাদাত হোসেন রাজীবের বিরুদ্ধে ওঠে শিশু গৃহকর্মীকে নির্যাতনের অভিযোগ। রুবেল হোসেনের কাহিনী নিয়ে চলচ্চিত্রই বানানো যায়। আর কয়েকদিন আগে দর্শক পেটালেন সাব্বির রহমান। ক্রিকেটারদের এমন আচরণের পর প্রশ্ন আসতে পারে তাহলে কি তারকা খ্যাতি বেপরোয়া করে দিচ্ছে ক্রিকেটারদের?

আরও পড়ুন  খেলার এই নমুনা হলে আর্জেন্টাইন কোচ সাম্পাওলি দেশে ফিরতে পারবে না: ম্যারাডোনা

তরুণ ক্রিকেটারদের যে পরামর্শ দিলেন মাশরাফি:

টাইগার অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজা মনে করেন তরুণদের উচিত সিনিয়র ক্রিকেটারদের অনুসরণ করা। ‘আমি চারজন ক্রিকেটারের নাম বলব। মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ, মুশফিকুর রহিম, সাকিব আল হাসান ও তামিম ইকবাল- তাদের ব্যক্তিগত জীবনটা একবার দেখবেন। তাদের ব্যক্তিগত জীবনের প্রভাব কিন্তু মাঠে এসে পড়ছে।’

মাশরাফি মনে করেন, একজন খেলোয়াড়ের ব্যক্তিগত জীবনই নির্ধারণ করে দেয় তার ক্যারিয়ার অথবা মাঠে তার পারফরম্যান্স কেমন হবে। একজন মানুষের ব্যক্তিগত জীবন যত স্মুথ হবে তার পারফরম্যান্সও তত স্মুথ হবে। একটার সাথে আরেকটা অনেক বেশি সংযুক্ত এবং অনেক গুরুত্বপূর্ণ।’

মাশরাফি মনে করেন, ‘জাতীয় দলের খেলোয়াড়দের মানসিকভাবে নিজেকে নিয়ন্ত্রণ করতে হবে। যারা নতুন আসেন তারা এখনো জানেনই না যে, আন্তর্জাতিক খেলাগুলো কত কঠিন। যে কারণে হঠাৎ করে খেলতে গিয়ে প্রেশারে পড়ে যান। তাই আমাদের উচিত মানসিকভাবে আগে নিজেদের নিয়ন্ত্রণ করা।’

আরও পড়ুন  নাইটক্লাব কেলেঙ্কারির পর দেশে ফিরে ১২ ঘণ্টার মধ্যেই তাসকিনের বিয়ে!
Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.com-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.com আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।