থামছেই না জয়ার জয়রথ!

0

গত ১৯ ডিসেম্বর মুম্বাইয়ের বিকে গ্রাউন্ডসে ‘জি সিনে অ্যাওয়ার্ডস’ অনুষ্ঠানে সেরা অভিনেত্রীর পুরস্কার ওঠে বাংলাদেশি নায়িকা জয়া আহসানের হাতে। কয়েকদিন পরেই গত ১৪ জানুয়ারি ‘ওয়েস্ট বেঙ্গল ফিল্ম জার্নালিস্ট অ্যাসোসিয়েশন ২০১৮’ (WBFJA) -এর বিচারেও সেরা অভিনেত্রী হন তিনি। জয়া দুটি সেরার পুরস্কারই পান কৌশিক গঙ্গোপাধ্যায় পরিচালিত ‘বিসর্জন’ ছবিতে তার অনবদ্য অভিনয়ের জন্য।

মাস না পেরোতে আবারও সেরার পুরস্কার উঠলো জয়ার হাতে। এবার আরও বড় পুরস্কার। একেবারে ফিল্মফেয়ার অ্যাওয়ার্ড। এবং আবারও সেই ‘বিসর্জন’ ছবি। এই ছবিতে অনবদ্য অভিনয়ের জন্য জনপ্রিয় ক্যাটাগরিতেই সেরা অভিনেত্রীর পুরস্কার পেয়েছেন বাংলাদেশের জয়া আহসান। শনিবার সন্ধ্যায় কলকাতা সায়েন্স সিটি অডিটোরিয়ামে জয়ার হাতে সেরার পুরস্কার তুলে দেন পরিচালক সুজয় ঘোষ। এই নিয়ে ‘বিসর্জন’ ছবির জন্য পরপর তিন বার সেরা অভিনেত্রীর পুরস্কার জিতে হ্যাটট্রিক করলেন জয়া।

আরও পড়ুন  ইন্ডিপেন্ডেন্ট টিভিতে কোটি টাকা পুরস্কারের কুইজ শো আসছে

এদিন খুব কষ্ট করতে হয়েছে জয়ার ‘বিসর্জন’ ছবির পরিচালক কৌশিক গঙ্গোপাধ্যায়কেও। খানিক বাদেই তার নাম ধরে ডাকাডাকি। একবার স্টেজে ওঠা, আবার নামা। তবে এ কষ্ট ছিল আনন্দের। শনিবার সন্ধ্যায় একাধিক পুরস্কার নেয়ার জন্যই বার বার স্টেজে ওঠা নামা করতে হয়েছে কৌশিক গঙ্গোপাধ্যায়কে। ‘বিসর্জন’ ছবির জন্য তিনি নিজেও জিতেছেন সেরা পরিচালকের পুরস্কার।

শনিবারের সন্ধ্যায় জয়ার পাশাপাশি সম্মানিত হয়েছেন বুম্বাদা প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায়ও। ‘ময়ুরাক্ষী’ ছবির জন্য জনপ্রিয় ক্যাটাগরিতে সেরা অভিনেতার পুরস্কার উঠেছে তার হাতে। ওই একই ছবির জন্য সমালোচক ক্যাটাগরিতে সেরা অভিনেতা হয়েছেন সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়। আর ‘প্রজাপতি বিস্কুট’ ছবির জন্য এই ক্যাটাগরিতে সেরা অভিনেত্রী হয়েছেন ইশা সাহা। যদিও এখানেও মনোনিত হয়েছিলেন বাংলাদেশের জয়া।

আরও পড়ুন  'সত্যিই হুমায়ূনের সন্তান হলে কথা তাঁর মতোই হওয়া উচিত'

এবারের আসরে আজীবন সম্মাননা দেয়া হয়েছে কলকাতার দুই কিংবদন্তী সাবিত্রী চট্টোপাধ্যায় ও মৃণাল সেনকে। পুরস্কার নিতে সাবিত্রী মঞ্চে এলেও শারীরিক অসুস্থতার কারণে আসতে পারেননি মৃণাল সেন। মৃণালের সঙ্গে দেখা করে তার হাতে পুরস্কার তুলে দেন বিখ্যাত বলিউড অভিনেত্রী শাবানা আজমি।

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.com-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.com আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।