চলে গেলেন বীর মুক্তিযোদ্ধা সাবেক সংসদ সদস্য মোহাম্মদ ইউসুফ

0

নিজে সাবেক সংসদ সদস্য হলেও অর্থাভাবে চিকিৎসা বন্ধ ছিল রাঙ্গুনিয়ার সাবেক সংসদ সদস্য ও বীর মুক্তিযোদ্ধা মোহাম্মদ ইউসুফের। একজন সংসদ সদস্য টাকার অভাবে চিকিৎসা না পাওয়ায় বিষয়টি নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ঝড় ওঠে। পরে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে তাকে উন্নত চিকিৎসা দেয়া হয়। তাকে ভর্তি করা হয়েছিল ঢাকার সিএমএইচে। এই হাসপাতালেই রবিবার মৃত্যুর কাছে হার মানেন চিরকুমার সাবেক এই সাংসদ।

আজ রবিবার সকাল ৮টার দিকে মোহাম্মদ ইউসুফ মারা গেছেন (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)। ঢাকার সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে (সিএমএইচ) চিকিৎসাধীন অবস্থায় শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করে তিনি। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৬৯ বছর। সাবেক এই সাংসদ দুই ভাই দুই বোনসহ অসংখ্য আত্মীয়-স্বজন রেখে গেছেন। তাকে চট্টগ্রামে নেয়া এবং জানাজার বিষয়টি এখনও চূড়ান্ত হয়নি।

আরও পড়ুন  বিজয়মঞ্চে বঙ্গবন্ধুর ছবি না থাকায় বিএনপিপন্থী মেয়রকে ধাওয়া

মোহাম্মদ ইউসুফের মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দিন।

উল্লেখ্য, একসময়ের তুখোড় বামপন্থী নেতা মোহাম্মদ ইউসুফ, একাত্তরে লড়েছেন রণাঙ্গনে। নব্বইয়ের দশকেই মোহাম্মদ ইউসুফ কমিউনিস্ট পার্টি ছেড়ে যোগ দেন আওয়ামী লীগে। ১৯৯১ সালে সংসদ সদস্য হিসেবে আওয়ামী লীগ থেকে রাঙ্গুনিয়া-৭ আসনে নির্বাচিত হয়েছিলেন। ধস নামিয়েছিলেন কুখ্যাত ‍যুদ্ধাপরাধী সালাহউদ্দিন কাদের চৌধুরীর ‘সাম্রাজ্যে’। রাজনীতিতে ক্রমাগত পিছিয়ে যাওয়া শুরু হয় একসময়ের মাঠ কাঁপানো শ্রমজীবী-মেহনতি মানুষের এই নেতার। রাজনীতি থেকে বিদায় নিতে হয়েছিল তাই। বার্ধক্যে পৌঁছা সেই মানুষটির শরীরে বাসা বেঁধেছিল নানা অসুখ। জীবনের পড়ন্ত বেলায় আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা বা সাবেক বামপন্থী সহকর্মীরাও খোঁজ নেননি কেউ।

সংসদ সদস্য শুনলে মানুষের চোখে যে ধরনের চেহারা ভেসে উঠে, মোহাম্মদ ইউসুফ ছিলেন তার ব্যতিক্রম। অর্থ, বাড়ি-গাড়ি কিছুই ছিলনা। সংসার ধর্ম করেননি। নিজ গ্রামে ছোট ভাইয়ের চা-দোকান থেকে আসা যৎসামান্য আয়ে ইউসুফের মুখে ভাত জুটতো।

আরও পড়ুন  চট্টগ্রামের সঙ্গীত জগতের সম্রাজ্ঞী শেফালীহীন ১১টি দীর্ঘ বছর

অর্থাভাবে দীর্ঘদিন তার চিকিৎসা বন্ধ ছিল। প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে গত ৭ জানুয়ারি চট্টগ্রামের সিভিল সার্জন রাঙ্গুনিয়ায় মোহাম্মদ ইউসুফের গ্রামের বাড়িতে যান। তাকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে (আইসিইউ) ভর্তি করা হয়। এরপর ৯ জানুয়ারি তাকে ঢাকার সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে নেয়া হয়।

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.com-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.com আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।