টেস্ট বিপর্যয়ের নেপথ্যে মিরপুরের কিউরেটর হাতুরুর পুরনো বন্ধু গামিনীর অপকৌশল?

0

ঘরের মাটিতে ম্যাচে সম্পূর্ণ সুবিধাটুকু বাংলাদেশেরই পাওনা উচিৎ। এটা অন্যায্য নয়। সব খেলাতেই স্বাগতিকরা এই সুবিধাটুকু পায়। কিন্তু হঠাৎ যেন মিরপুরে উইকেট একবারেই অচেনা! স্বাগতিকদের জন্য রীতিমতো আত্মঘাতী হয়ে উঠেছে। শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে প্রথম ইনিংসে মাত্র ১১০ রানে অলআউট হয়ে গেছে টাইগাররা। দেশের মাটিতে যা গত ৭ বছরের মধ্যে সর্বনিম্ন।

মিরপুরের উইকেট গত কিছুদিন ধরেই যেন বিরূপ আচরণ করছে। বিশেষ করে গত বছর উইকেট নতুনভাবে তৈরি করার পর থেকে। উইকেটের মাটি এবং আউটফিল্ডের ঘাস আনা হয় সাধারণত দেশের বাইরে থেকে। নতুনভাবে সংস্কার করার আগে মিরপুরের উইকেটের জন্যও দেশের বাইরে থেকে মাটি আনা হয়। এবং তা দিয়েই উইকেট বানানো হয়েছে। কিন্তু উইকেট খুব দুর্বোধ্য আচরণ করছে নতুন করে প্রস্তুত করার পর। এর কারণ তবে কি মাটি, অর্থাৎ মানসম্পন্ন মাটি আনা হয়নি? নাকি শ্রীলঙ্কান কিউরেটর গামিনী ডি সিলভার ব্যর্থতা? অথবা হাতুরুসিংহের দীর্ঘদিনের বন্ধু গামিনীর বিশেষ কোন অপকৌশল? যা নিয়ে বেশ গুঞ্জন তৈরী হয়েছিল সদ্য সমাপ্ত ত্রিদেশীয় সিরিজের সময় থেকে।

উইকেট নিয়ে আসলে কেউই মুখ খুলতে চান না। বিশেষ করে দেশীয় কিউরেটররা। একজন কিউরেটরকে মিরপুরের উইকেট নিয়ে মন্তব্য করতে বলা হলে তিনি অপারগতা প্রকাশ করেন। গত ডিসেম্বরে বিপিএলের উইকেট নিয়ে সমালোচনা করে মোটা অঙ্কের জরিমানা গুণতে হয়েছিল তামিম ইকবালকে।

তবে ক্রিকেট বোদ্ধাদের অনেকেই শুধু মাটির উপর দোষ চাপাতে নারাজ। তারা গামিনীর ব্যর্থতাকে বড় করে দেখছেন। তাদের ক্ষোভ, মাসে প্রায় ৫ লাখ টাকা খরচ তার পেছনে, অথচ তিনি যে উইকেট বানাচ্ছেন তা ক্ষতিকর হয়ে দাঁড়াচ্ছে স্বয়ং স্বাগতিকদের জন্য। ইঙ্গিতে এ কথাও বুঝিয়ে দিলেন তারা, গামিনীর পিচ বরং শ্রীলংকাকেই বাড়তি সুবিধা দিচ্ছে।

ত্রিদেশীয় সিরিজের ফাইনালে বাংলাদেশের পছন্দসই উইকেট না বানিয়ে দারুণ সমালোচিত হয়েছিলেন গামিনী ডি সিলভা। তার বিরুদ্ধে ম্যাচের আগের দিন উইকেটর গোপন তথ্য ফাঁসের অভিযোগ পর্যন্ত ওঠে। দীর্ঘদিনের বন্ধু হাথুরুসিংহের সঙ্গে ফাইনালের আগের দিন লম্বা সময় গোপন বৈঠক করেন গামিনী।

ঢাকা টেস্টের উইকেট নিয়েও অনেকেই সন্দিহান ছিলেন। আশঙ্কা করেছিলেন, টেস্টের উইকেটও কঠিন হবে। কেউ কেউ গামিনীকে সরিয়ে চট্টগ্রামের কিউরেটর জাহিদ রেজা বাবুকে মিরপুরের দায়িত্ব দেওয়ার দাবি করেছিলেন। হাথুরুর বন্ধুকে বিশ্বাস করে তবে কি ভুল করেছে বিসিবি? তিনি কি রহস্যজনক উইকেট বানিয়ে আবারও বিপদে ফেলেছেন বাংলাদেশকে? নাকি মাটির সমস্যার কারণেই যুৎসই উইকেট বানানো যাচ্ছে না। কোনটা সত্য?

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.com-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.com আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।