জাভেদ আখতারও মসজিদে মাইক নিষিদ্ধ করার পক্ষে!

0

সোনু নিগমের পর এবার জাভেদ আখতার। মসজিদে মাইকের ব্যবহার নিষিদ্ধ করার আর্জি জানালেন বলিউডের এই বিখ্যাত গীতিকার এবং কবিও। তবে শুধু মসজিদ নয়, যেকোনও ধর্মীয় স্থানেই মাইকের ব্যবহারের বিরুদ্ধে তিনি।

বুধবার নিজের টুইটার হ্যান্ডেলে টুইট করে এই আর্জি জানান জাভেদ আখতার। লিখেন, ‘মসজিদে মাইক ব্যবহার নিয়ে সোনু নিগম যা বলেছিল আমি তার সঙ্গে একমত। শুধু সোনু নয়, আরও যারা এই বিষয় নিয়ে মুখ খুলেছিল তাদের সবাইকে আমি সমর্থন করি। মসজিদ হোক কিংবা অন্য কোনও ধর্মীয় স্থান, কোথাও মাইক ব্যবহার করা উচিত নয়।’

গত বছর মসজিদে মাইক ব্যবহার নিয়ে মুখ খুলেছিলেন গায়ক সোনু। এরপর থেকে বিভিন্ন মহলে সমালোচনার সম্মুখীন হতে হয় তাকে। জল গড়ায় অনেক দূর। কিন্তু ঘটনার এতদিন পরে এখনও খুনের হুমকি পাচ্ছেন এই গায়ক। আর তাই মুম্বাই পুলিশ তার নিরাপত্তা বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

আরও পড়ুন  নিউইয়র্কে বাংলাদেশি ইমাম হত্যা মামলায় অস্কার মোরেল দোষী সাব্যস্ত

আর এই পরিস্থিতিতেই জাভেদ আখতারের এই টুইট। সম্প্রতি মহারাষ্ট্রের গোয়েন্দা বিভাগ জানিয়েছে, পাকিস্থানের একটি জঙ্গিগোষ্ঠী সোনু নিগমের উপর হামলা চালাতে পারে। জনসমক্ষে কোনও সিনেমার প্রচারের সময়েই এই হামলা হতে পারে। এই মর্মে তারা সতর্কবার্তা দিয়েছে মুম্বাই পুলিশকেও।


ছবি: সোনু নিগম

আর তাই সোনুর নিরাপত্তা বাড়ানোর ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নিয়েছে পুলিশ কর্তৃপক্ষ। এছাড়া আরও দুই বিজেপি নেতার উপরও হামলার আশঙ্কা রয়েছে। বাড়ানো হচ্ছে তাদের নিরাপত্তাও।

উল্লেখ্য, ইসলামে ধর্মীয় বিষয়াদিতে মাইক ব্যবহার নিয়ে বেশ কিছু পাল্টাপাল্টি বক্তব্য আছে। অনেকেই বলেন, নবীদের যুগে যেহেতু মাইক ছিলো না এবং তারা এটি ব্যবহার করা ছাড়াই প্রার্থনা করেছেন, তাই নতুন করে এটি সংযোজন হারাম। এই বক্তব্যের পক্ষে সূত্র হিসেবে বলা হয়-

আরও পড়ুন  ইন্টারপোল খুঁজে পায়না, কিন্তু বুক ফুলিয়ে হাঁটছে রাজাকার মঈনুদ্দীন!

হযরত ইবরাজ ইবনে সারিয়া হতে বর্ণিত হযরত মুহাম্মদ বলেন, “তোমাদের মধ্যে যারা (আমার পরে) বেঁচে থাকবে, তারা অনেক মত পার্থক্য দেখতে পাবে। অতএব তোমাদের ওসিয়ত করছি, তোমরা আমার সুন্নত এবং খোলাফায়ে রাশেদিনের সুন্নতকে একমাত্র মেনে চলবে। আমার সুন্নতকে দাঁত দিয়ে আঁকড়ে ধরে থাকবে। তোমরা নব আবিস্কৃত কোন বস্তু থেকে দূরে থাকবে, কেননা প্রত্যেক বিদায়াতই পথভ্রান্ত।” মুসলিম শরিফে এক রিওয়ায়েতে বলা হয়েছে: প্রত্যেক পথভ্রান্তরাই জাহান্নামি। (আহমদ, আবু দাউদ, তিরমিজী, ইবনে মাজাহ ও মিশকাত শরীফ, পৃষ্ঠা: ২৯-৩০)

আবার কোরানে আছে, “আর তোমরা আল্লার ইবাদাত কর এবং তার ইবাদাতে অন্য কোন কিছুকে সংযোজন করোনা। (সুরা নিসা- ৩৬)

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.com-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.com আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।